বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার বিয়াঘাট ইউনিয়নের সাবগাড়ি এলাকার একটি ভুট্টা ক্ষেত থেকে ওই শিশুর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত মুহিবুল্লাহ সিংড়া উপজেলার গোটিয়া মহিষমারী গ্রামের পল্লী চিকিৎসক ইসাহক আলীর ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সিংড়া উপজেলার গোটিয়া মহিষমারী গ্রামের শিশু মুহিবুল্লাহ তার মার সঙ্গে প্রায় এক মাস আগে পার্শ্ববর্তী উপজেলা গুরুদাসপুর উপজেলার সাবগাড়ি গ্রামে নানার বাড়ি বেড়াতে যায়। বৃহস্পতিবার বিকেলে মোবাইল ফোনে কার্টুন দেখতে দেখতে বাড়ির বাইরে যায় সে। তবে সন্ধ্যা গড়িয়ে গেলেও ফিরে না আসায় আশেপাশে খোঁজ করেও তার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।  পরে রাত সাড়ে ৮টার দিকে বাড়ি থেকে আধা কিলোমিটার দূরে এক ভুট্টা ক্ষেতে তার বস্তাবন্দি গলা কাটা লাশ পাওয়া যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক জানান, রাতে ভুট্টা ক্ষেতে শিশুর বস্তাবন্দি গলা কাটা লাশ পাওয়ার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। পরে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ মর্গে পাঠানো হয়।

তিনি বলেন, শিশুটির হাতে থাকা মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিতে তাকে হত্যা করে হত্যাকারী মরদেহ ফেলে গেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে সঠিক কারণ উদঘাটনে মাঠে নেমেছে পুলিশ।